ননফিকশন

মিম জেনারেশন এবং সিসিফাসের মিথ

মিম (Meme) কালচারটার জন্ম এই শতকে। বিভিন্ন গবেষক অনেকসময় এরে উল্লেখ করছেন কালচারাল ইউনিট হিসেবে। মিম হইতেছে একধরণের পোস্টমর্ডান ফোকলোর যা জনগণের রাজনৈতিক সম্পৃক্ততায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। আমাদের আলোচনা ঠিক এই জায়গায়।

আমার কিছু বলার আছে — রোমেলু লুকাকু

বেলজিয়াম বনাম পানামা-র খেলায় একজন স্ট্রাইকার ৬৯ এবং ৭৫ মিনিটের মাথায় দু‘টি গোল করেছেন। পেশাদার…

সৈয়দ মুজতবা আলীর ‘চুম্বন’

ইয়োরোপের কোনো এক বিখ্যাত নগরের মোকদ্দমা উঠেছে এক চিত্রকরের বিরুদ্ধে। তিনি একটা এক্সিবিশনে একাধিক ছবির মধ্যে দিয়েছেন সম্পূর্ন নগ্না এক যুবতীর চিত্র। পুলিশ মোকদ্দমা করছে, নগ্না রমনীর চিত্র অশ্লীল, ভাল্‌গার, অব্‌সীন, পর্নগ্রাফিক। এ ধরনের ছবি সর্বজনসমক্ষে প্রদর্শন করা বে-আইনী, ক্রিমিনাল অফেন্স।

দিস ইজ ওয়াটার। ডেভিড ফস্টার ওয়ালেস

    [ ২০০৫ সালে  ক্যানিয়ন কলেজ সমাবর্তনে বক্তৃতা দিছিলেন মার্কিন সাহিত্যের  একজন  মায়েস্ত্রো ডেভিড…

শহীদুল জহিরের ডায়েরি

[ লেখকের ব্যক্তিজীবন নিয়া তাই পাঠকের কৌতূহল স্বাভাবিকভাবেই বেশি। আর সেই লেখক যদি হন শহীদুল…

না পড়েই কিভাবে বই নিয়া কথা বলবেন?

একজন তুখোড় পড়ুয়ার পক্ষেও একজীবনে দুনিয়ার ভালো বইগুলির একটা ভগ্নাংশও পড়া সম্ভব না অথচ বইপত্র নিয়া কথাবার্তাও বলা লাগে। তাছাড়া, বই পড়ারে সমাজ, যেভাবে ‘ভালো’ ‘মহৎ’ বলে ব্যাপক ওয়ারশিপ করে, আসলে এমনকি লিটারেরি এলিটরা বেশিরভাগ সময়ই বই পড়ে না। না পড়েই কথা বলে। অতএব নন-রিডার হওয়া জরুরি। কী দরকার জয়েস ও প্রুস্ত পড়ার, যদি না পড়েই বা অন্যের লেখা পড়েই এদের বিষয়ে কমেন্ট করতে পারেন? শেখা দরকার কিভাবে বই না পড়েই বই বিষয়ে কমেন্ট করা যায়।

পশ্চিমা দর্শন কেন বর্ণবাদী?

তথাকথিত পশ্চিমে মূলধারার দর্শন সংকীর্ণমনা, কল্পনাশক্তিহীন, এমনকি বিদেশীদের সম্পর্কে অহেতুক ভীতসন্ত্রস্ত। পশ্চিমের কেতাবি দর্শন চীন, ভারত এবং আফ্রিকার চিন্তাধারাকে অগ্রাহ্য করে, অবজ্ঞা করে।

error: